পরাণ ভাই । PART- 3 Naser Kamal

পরাণ ভাই ।

PART-3

 

———————–ঃ নাসের কামাল

বাস্তবের
মুখোমুখি দাঁড়িয়ে প্রতি পদে পদে শিক্ষা গ্রহণ করছি ঘাৎপ্রতিঘাতে পরীক্ষা দিচ্ছি প্রতিনিয়ত ।
সামাজিক জীবনে চলতে গিয়ে পদদলিত হচ্ছে কত জীবনের সামাজিক পদমর্যাদা দেখছি নিরবে
দাঁড়িয়ে । এই নির্গৃহ মানুষ গুলোর দিকে চেয়ে মুখ ফিরিয়ে চলতে নিজের কোনদিন অসিবিধে হয়নি কিন্ত এই পাশের মানুষটি কি অসাধারণ নিয়মে গঠিত তা না চললে না দেখলে নিজেও বুঝে উঠতামনা ।

——— এতো হৈচৈ কোথায় হচ্ছিলো হঠাৎ করেই পরাণ ভাই দেখালো মেডিক্যালের সামনের গেটের দিক উদ্দেশ্য করে , ঐতো , দেখ সিপু পুলিশ তিনটা এদিকেই আসছে আমাদের উদ্দেশ্য করে কিছু মনে হচ্ছে বলছে কাকে । যাকে বলছে ওটায় ওসি সাহেব ।

———– এর পর যা ঘটলো বিস্ময়ে মাথা কাটা যাবার উপক্রম । একি ঘটলো এ কি ঘটে গেলো মুহুর্তের মধ্যে ।
ওসি সাহেবের নির্দেশক্রমে এ্যারেষ্ট করা হলো পরাণ ভাইকে দেখানো হলো অপহরণ কেশের অরেন্টের আসামী সে এবং তাঁর নামে একাধীক মামলা রয়েছে বলে সবার সামনে সংক্ষিপ্ত একটা বিবৃতি উল্লেখ করে দিল ।

———– চোখের সামনে কিছুই দেখছিলামনা দুই চোখ বন্ধ করে যা দেখলাম এ অন্যায় অসত্য সব ।
রহণপুর পৌর বাসী কখনোই মেনে নিবেনা । পরাণ ভাই এর অসংখ্য ভক্ত শ্রোতা এখানে মুহুর্তের মধ্যে ঘিরে ফেলবে রুখে দাঁড়াবে প্রতিবাদ জানাবে প্রচন্ড রকম । এ অসত্য এ অন্যায় এমন জঘন্য কাজ কখনো পরাণ ভাইয়ের পক্ষে করা সম্ভব নয় । জানে এই পৌর বাসী তাঁর মত সৎ ন্যায় নিষ্ঠাবান ব্যক্তি আর দ্বিতীয়টি নেই এখানে ।

———- চোখ খুলে দেখলাম পরাণ ভাইকে একজন কনেষ্টেবুল হ্যান্ডকাপ পড়াচ্ছে অসংখ্য মানুষ দূরে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে সেই দৃশ্য উপভোগ করল মাত্র কেউ এগিয়ে এসে কিছু জিজ্ঞেস পর্যন্ত করলোনা ।
সবার ভাবখানা দেখে ফাটা বেলুনের মত চুপসে গেলাম ।

——— যা ভেবেছিলাম চিন্তা ও বিশ্বাস করেছিলাম বাস্তবে সব কিছু নিশ্মার করে সবার চোখের সামনে দিয়ে নিয়ে চলে গেলো পরাণ ভাইকে তাঁদের একটি পিকাপ ভ্যানে তোলে । এবারও কেউ টু শব্দটি করলোনা । শেষ আশায় বুক বেঁধে ছিলাম এবার হয়তো কোনো উপায়ে রক্ষা হবে অবশেষে আশা ভঙ্গের মানুষ গুলোকে দেখলামনা আর শুধু পরাণ ভাইয়ের আশাহত দুটি বিনয়ী নম্র শব্দে কান দুটোতে কড়াঘাৎ করতে থাকলো অনবরত –
আমার অপরাধ !

————– না একটু নিজে প্রতিবাদ করলাম না লিকলিকে ছেলেটিকে দেখলাম না অন্যদের । পরক্ষনেই অন্যদের দোষারোপ করা মনটা ঘুরে দাঁড়িয়ে নিজেকেই বরং গালি দিলো নিজের প্রতিই বরং ঘৃণা জন্মালো প্রচন্ড রকম ।
ছিঃ ছিঃ এ জন্ম বৃথা জন্ম !

Stay with us for next  PART-4

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *